পাওয়া না পাওয়া

603310_322745817839257_934488734_n

 

আমার জীবনের শুরুটা যতটা আনন্দে কেটেছে , নিজেকে নতুন করে আবিস্কার করার পর সমই গুলো অনেকটা নিজেকে গুটিয়ে নেবার মত । অনেকটা গুছিয়ে নেবার মত ও বলতে পারেন । সব সমই একা একা থাকা , নিরবে একা কথা বলা, গান শোনা আর তার সৃতি গুলা আঁকরে রাখা । সৃতি গুলা যে খুব মধুমই তা বলব না কিন্তু যে আমাকে আমার নিজের অস্তিত্ব কে বুঝাল তাকে কিভাবে ভুলে যাই ।

ssc পাশ করেছি সবে , আমার বাড়ির সামনে যে খেলার মাঠ সেখানে আবির এর সাথে নতুন একটা ছেলে খেলতে এলো বিকালে । শুনলাম আবিরদের বাসাই নতুন ভাড়াটিয়ার ছেলে । অনেক friendly . আমার সাথে অল্প দিনে বেশ খাতির হয়ে গেল । সত্যি বলতে কি তার প্রতি আমর অন্য কোন attraction তখন ও তৈরি হইনি । কিছুদিন পর আমি হেমার সাথে ওর পরিচয় করিয়ে দি । আমার আর হেমার রিলেশন মাত্র ২ /৩ মাসের হবে বোধহয় । ব্যাপার টা যে ও স্বাভাবিক ভাবে নিতে পারেনি তখন বুঝি নি আমি ।
আমাদের ব্রেক আপ এর পর ও আমাকে খুব সাপোর্ট দিত এবং হেমার বাজে আচরণ গুলা মনে করিয়ে দিত । একদিন ওর বাসাই আমাকে যেতে বলল । গিয়া দেখি ঐ দিন ওর বার্থডে এবং আমি একমাত্র গেস্ট ।
আর কাউকে জানাস নাই ?
> নাহ
কেন ? আবির কে ডেকে আনি ?
>নাহ , ও আপার বাসাই গেছে । আজ ফিরবে না । এবং তুই ও আজ বাড়ি যাবি না … গিফট ছাড়া আইসস , এইডা তোর শাস্তি ।

আমি ও কিছু বলতে পারলাম না । বাড়িতে ফোন করে থাকার বেবস্থা হল । রাতে যখন ঘুমাব তখন ওকে বললাম হেমার কথাখুব মনে পরে । শুনে ও খুব মন খারাপ করলো । বলল হেমা ছাড়া আরেকজন আছে যে তোকে তার জীবনের থেকেও অনেক ভালবাসে । আমি বললাম , কে তুই ? বলে হেসে উঠলাম । ও বলল , হুম আমি , বলে জোর করে আমাকে কিসস করলো । আমি ভাবলাম ফাজলামি করসে বোধহয়ই , পরে দেখি ওর চোক ভেজা । আমি কোন কথা না বলে রাতে বারি ফিরে আসলাম । সারারাত ঘুমোতে পারিনি সেদিন । পরদিন ওর সাথে কথা বলতে গেলে আমার সাথে আর কথা বলে না । এভাবে ৭/৮ দিন কেটে গেল । আমি নিজে ও কখন যে এত টা affected তার প্রতি বুজতে দেরি হোল । ওই দিন সন্ধ্যাই দেখা করলাম , এবং কিছু বলার আগেই ওর হাত ধরে একটা চুমু দিলাম । ও কেঁদে দিল ও আমাকে জড়িয়ে ধরল । ওই দিনটা ছিল আমার জীবনের একটা সেরা দিন ।

২ দিন পর , আমি তখন admission test এর জন্য preparation নিচ্ছি । tnt তে ফোন আসল ওর , বলল urgent দেখা করতে হবে ,
আমি বললাম কাল দেখা করি , আমার এক্সাম ।
ও বলল , বেশী সময় নিব না। আমি তাতে ও রাজি হলাম না ।
রাগ করে বলল, যা তোর সাথে আর জীবনে দেখা করব না । বলে একটা হাসি দিল । বুজলাম ফাজলামি করছে ।” আমি কাল একটু গ্রামের বাড়িতে যাব” বলে ফোন কেটে দিল ।
পর দিন সকালটা প্রাকৃতিক ভাবে স্বাভাবিক থালেও ও আমার ঘুম ভাঙল আম্মুর মুখে রিয়াদের মৃত্যু এর খবর শুনে । যে privet car এ ওরা গ্রামে যাচ্ছিলো ওইটা উল্টে খাঁদে পরে যাই ,
তাহলে ওর রাতের কথাটা এভাবে সত্যি হয়ে যাবে , ওর সাথে আমার আর কোনদিন দেখা হবে না !!! পুরো পৃথিবী স্তব্ধ মনে হতে লাগলো ।
তবে হ্যাঁ , ওর সাথে আমার আর একবার দেখা হয়েছিলো , যখন সে কোন কথা বলেনি আমার সাথে , কোন অভিমান ও ছিল না । নিরব, নিথর হয়ে শুয়ে ছিল শুধু ।

One thought on “পাওয়া না পাওয়া

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s