প্রতারনা আর গে সেক্স

আমার এক ফেস বুক বন্ধু তার জীবনের গল্প বলে আমায় । গল্পটা যথেষ্ট কষ্টের । সেই সাথে যথেষ্ট শিক্ষণীয় । আশা করি এই গল্পটা থেকে আমরাও সাবধান হব ।
*******************************************************
আমি পড়ি একটা নামকরা মেডিকেল কলেজে । থাকি বন্ধুদের সাথে । একটা ফ্লাটে । সমকামিতা সম্পর্কে তেমন কিছুই জানতাম না । তবে ছেলেদের ভালো লাগত । অনেক ছেলেই আমার সাথে মিশতে চাইত । কারণ আমি দেখতে নেহাত মন্দ নই । বরং ভালই বলা যায় । সেটা বুঝতে পারতাম যখন মেয়েরা আমায় বিরক্ত করত ফোনে । সহপাঠী বান্ধবীরাও কম না । তাদের যন্ত্রণাতেও মাঝে মাঝে অতিষ্ঠ হতাম । কিন্তু আমি বরাবরই পড়ুয়া ছেলে । ইচ্ছে করেই এসব এড়িয়ে চলতাম ।
এভাবেই চলে যাচ্ছিল দিন । হথাত করেই একদিন ওর সাথে আমার ফেসবুকে পরিচয় । আমার রিয়েল আইডি তে । আমার প্রোফাইল ছবিটা সবাই খুব পছন্দ করত । স্বাভাবিক ভাবে সেও এটার প্রশংসা করল । সেদিন প্রথমবারের মত টার সাথে চ্যাট করলাম । ভালো লাগলো । এরপর থেকে প্রতিদিন এসে তাকে খুজতাম ফেসবুক চ্যাট এ । আমি খেয়াল করতাম ও আমার সব ছবি আর স্ট্যাটাসে কমেন্ট দিতো । কেমন একটা ভালো লাগা কাজ করত বুকের ভেতর । একে লাভ বলে কিনা জানি না ।
টানা এক মাস পর আমরা দেখা করলাম । জিয়া উদ্যানে । আমি কেমন একটা ঘোরের মাঝে ছিলাম । ও খুব স্মার্ট। লম্বা। অনেকটা মডেল দের মত । আমি বুঝতে পারছিলাম আমি ওর প্রতি দুর্বল হয়ে যাচ্ছি । কথা বলতে বলতে বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা হল । তারপরেও বাসায় ফিরতে ইচ্ছে হচ্ছিল না । মনে হচ্ছিল ওর পাশে যদি থেকে যেতে পারতাম ! বেশ হতো ।
ওই আমার হাত ধরে হাঁটতে লাগলো । আমার শরীর কেমন একটা শিহরন হচ্ছিল । এর আগেও অনেক বন্ধুদের সাথে হেঁটেছি । হাত ধরে । কাঁধ ধরে । কই ? এমন তো লাগে নি !
বাসায় এসে নেট এ সার্চ দিলাম । বুঝলাম আমি পুরুষ হয়ে পুরুষের প্রতি ভাললাগা ফিল করছি । একে সমকামিতা বলে । তাহলে কি আমি সমকামী ? নিজেকে নিজে প্রশ্ন করলাম । কিন্তু আমারত মেয়েদের দেখলেও ভালো লাগে ।
ও একটু পর ফোন দিল । কথা বললাম । একটানা এক ঘণ্টা । ওর কথাই শেষ হয় না । আমারও একই অবস্থা ।

দু দিন পর ও আমার বাসায় আসল । আমার নতুন কেনা ল্যাপটপ এ মুভি দেখছিলাম দুজনে । টাইটানিক মুভিটা । ও বলল, দেখ ওরা দুজন দুজন কে কত ভালো বাসে ।
আমি বললাম , আমার খুব ইচ্ছে করে কাওকে ভালবাসতে ।
ও বলল, সত্যি !
আমি বললাম, হুম । কেও যদি হাত বাড়াত !
ও সাথে সাথে তার ডান হাত আমার দিকে বাড়িয়ে দিল ।
আমি একটু ভীতু টাইপের ছেলে । কি করব বুঝতে পারছিলাম না । চশমার কাঁচের সামনের সবকিছু ঝাপসা মনে হচ্ছিল । ওই আমার হাত ধরে বলল, এতো লাজুক কেন তুমি ?
এরপর কি হল জানি না ।
ওর ঠোঁট হথাত আমার ঠোঁটে ।
জীবনে প্রথম চুম্বন । তাও একটা পুরুষকে । আমি জানি না কিভাবে চুমু খেতে হয় ।
ও আমায় চুমু খাচ্ছিল । বোঝা যাচ্ছে ও অভিজ্ঞ । আমি শুধু সাড়া দিচ্ছিলাম ।
ভেতরের পুরুষ টাযে কখন জেগে গেছে বুঝতে পারি নি ।
ও কিন্তু সেটা টের পেয়ে গেছে । কারণ আমার পরনের থ্রি কোয়ার্টারের সামনের অংশ তখন ফুলে উথেছে ।
আমি সব কন্ট্রোল করার চেষ্টা করেও পারলাম না । ওর সাহসী হাত তখন আমার থ্রি কোয়ার্টারের উপরে ।
আমি বুঝতে পারছিলাম । আমার পুরুসাঙ্গ আগুনের মত গরম হয়ে গেছে । তার উপর কারও হাতের ছোঁয়া । ও চুমু খেতে খেতেই আমার পেনিসের উপরচাপ দিতে থাকল ।
ও এবার ঠোঁট আমার গলায় বুলাতে লাগলো । আমি পাগল হয়ে যাচ্ছিলাম ।
এতো সুখ !
ও আমার টি শার্ট গলা পর্যন্ত তুলে দেয় । আমার শরীর ফর্শা । বুকে লোম নেই ।
ও আমার গোলাপি নিপলে মুখ দেয় ।
আমি চিৎকার করে উঠি ।
ওর চুল আঁকড়ে ধরি । বুঝতে পারি ও খুব পটু সেক্স এর ক্ষেত্রে ।
ওর মুখ আমার নাভির চারপাশে আদর দেয় ।
আমি শুধু এপাশ ওপাশ করছি । ও এবার আমার থ্রি কোয়ার্টারের বোতামে হাত দেয় ।
আমি আর বাঁধা দিই না ।
বোতাম খুলে থ্রি কোয়ার্টার খুলে ফেলার সাথা সাথেই ও বলল, ওয়াও ! ইউ আর এ রিয়েল ম্যান উইথ এ বিগ ডিক ।
ও এবার আমার পেনিসের মাথায় জিব বুলায় । আমি শিউরে উঠি । ও গড !
এতো সুখ আমি কেমন করে সহ্য করব । এতদিন ব্লু ফ্লিম এ এসব দেখেছি আর মনে ,মনে কল্পনা করেছি । আর আজ ?
ও হ হ হ ।
ওর জিব এখন পেনিসের উপর থেকে গোরার দিকে নামছে ।
আমি সুখে কাতরাচ্ছি ।
আমি জানি আমার পেনিস টা একটু বড় । তাই পেনিস্ টা ওর মুখে পুরোটা গেল না ।
আমি তখন পুরোই মাতাল । কোনদিক খেয়াল নেই ।
ওর মাথা ধরে সমানে কোমর ঠেলে দিচ্ছি ।
ওর শ্বাস মাঝে মাঝে বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল । আমার পেনিস ওর গলা পর্যন্ত যাচ্ছিল ।
বেশিক্ষণ পারলাম না নিজেকে ধরে রাখতে । ওর মাথা ঠেসে ধরে বীর্য ফেললাম ওর মুখে ।
ওর পুরো মুখ বীর্যতে মাখামাখি । ও হেসে বলল, এতো ক্রিম জমা ছিল ?
আমি একটু লজ্জা পেলাম ।
ও বাথরুম থেকে ফ্রেস হয়ে আসল । এসে ওর ব্যাগ থেকে একটা সেভেন আপ এর বোতল বের করল । বলল, এটা খাও । ভালো লাগবে ।
আমিও বীর্য বের হবার কারণে হাল্কে দুর্বল ছিলাম । তাই বেশ খানিক টা খেলাম । সেভেন আপ খাওয়ার কিছুক্ষন পরই আমার কেমন ঘুম ঘুম লাগছিলো । আমি যে কখন ঘুমিয়ে পরেছি জানি না ।
পরদিন ঘুম ভাঙ্গার পর নিজেকে হাসপাতালে পাই ।
এর পরের কাহিনী আমার রুম মেটদের কাছে সুনি আমি ।

সেদিন রাত ১০ টায় আমার পাশের ২ রুম মেট আসে । তারা ফ্লাট এর দরজা খোলা পায় । তখনই তারা দৌড়ে ভেতরে এসে দেখে আমি আমার রুমে বেহুস হয়ে পরে আছি । আমার মোবাইল, ল্যাপটপ আর মানিব্যাগ সব খোয়া গেছে, মানে কেও নিয়ে গেছে ।
তারা আমাকে বার বার জিজ্ঞেস করে আমি রুমে কাকে এনেছিলাম ।
আমার মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পরল ।
এ আমি কি শুনছি । আমি লজ্জায় কিছু বলি না ওদের । চুপ করে থাকি । ঘুমের ভান করে চোখ বুজি ।

এর ২ দিন পর আমি হসপিটাল থেকে বাসায় আসি । জানতে পারি আমাকে সেভেন আপ এর সাথে কিছু ঘুমের ওষুধ মিক্স করে খাওয়ানো হয়েছিল । আমি বুঝতে পারি এটা আমার সেই ফেসবুক বন্ধুর কাজ । যে আমাকে ভালোবাসার স্বপ্ন দেখিয়েছে । আমি লজ্জায় কুকরে যাই । কাওকে এই জালা বলতে পারি না । কেমন করে বলব ? এটা কি বলার কথা ?
আমি ওর ফেস বুক আইডি খুজি । পাই না । দেখি ডি একটিভ । ওর মোবাইলে কল দিই । দেখি বন্ধ । আমি বুঝলাম আমি একটা বাতপার আর ধুকাবাজ কে লাভ করেছিলাম ।
আমি আমার সব ফেস বুক বন্ধুদের একটা কথাই বলতে চাই । কাওকে বাসায় নেবার আগে ভেবে চিনতে নিন । নাহলে আমার মত সব হারাতে হবে ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s