প্রচণ্ড ভালোবাসি

২০০৫ সালের কথা ।
তখন আমি ক্লাস সিক্স বা সেভেনে পড়ি ।
আমার ছোটবেলা কেটেছে গ্রামে । তাই সেইসময় সমকামিতা কি তা বুঝার মত সুযোগ আমার ছিল না ।
আমাদের গ্রামে আমার বড় ভাইয়ার একজন খুব ভালো বন্ধু ছিল যে সম্পর্কে আমার কাকা হয় ।
উনার আর আমাদের পরিবারের মাঝে খুব ভালো সম্পর্ক ছিল ।
আমাদের আর উনাদের বাড়িকে গ্রামের সবাই এক নামে চিনত ।

আমি ছোটবেলা থেকেই একা এক রুমে থাকি ।
তখন থেকেই মনের অজান্তেই কাকাকে ভালো লাগত আমার ।
ভাইয়ার ভালো বন্ধু হওয়ায় উনি প্রায়ই আমাদের বাসায় সময় কাটাতেন
আমিও ভইয়ার খুব আদরের ছিলাম তাই ভাইয়া যেখানে যেত আমিও সাথে যেতাম ।
একদিনের কথা । সেদিন ভাইয়া আমার বড় বোনের বাড়ি ঢাকায় বেড়াতে গেছে ।
তখন ওই কাকার সাথেই আমার দিনের বেশিরভাগ সময় কাটতো ।
কাকার সাথে আমার সম্পর্কটা ক্রমেই বন্ধুর মত হয়ে যাচ্ছিল । আমরা দুজন মারামারি করতাম । খুনসুটি করতাম । বিলের পানিতে একসাথে মাছ ধরতে যেতাম ।
সেদিন কাকা আমাকে বলল, পাশের গ্রামে ফুটবল খেলা হবে । ঢাকা থেকে নামিদামি খেলোয়াড় আসবে । দেখতে যাবি ?
আমিতো খুশিতে আত্মহারা ।
বললাম, যামু । কিন্তু মাকে বল যে তুমি আমাকে নিয়া খেলা দেখতে যাবা ।
কাকা মার কাছ থেকে অনুমতি নিল ।

পরদিন আমি নতুন লাল রঙা শার্ট আর হাফ প্যান্ট পরে কাকার সাথে পাশের গ্রামে যাবার জন্য বাড়ি থেকে বের হলাম ।
আমাদের গ্রামের অনেক মানুষ দলে দলে খেলা দেখতে যাচ্ছিল ।
আমি আর কাকা নিজেদের মত যাচ্ছি ।
পাশের গ্রামে যেতে হলে নৌকায় যেতে হয় ।
যাওয়ার সময় বুকের ভেতর একটা ভালো লাগা টের পাচ্ছিলাম । দুইটা কারণে ।
এক নম্বর হল খেলা দেখতে যাচ্ছি আর দুই নম্বর হল কাকার সাথে যাচ্ছি ।

অবশেষে আমরা পাশের গ্রামে পৌঁছলাম ।
মাঠ এর চারদিকে হাজার হাজার দর্শক ।
খেলা শুরু হল ।
সবাই বসে বসে খেলা দেখছি ।
আমি আর কাকা একসাথে বসেছি ।
আচমকা আকাশে মেঘ করে আসল ।
অনেক জোরে বৃষ্টি নামল ।
এতো বৃষ্টি যে আমরা সবাই ভিজে গেলাম ।
আশে পাশে মাথা গুঁজার মত কিছু ছিল না ।
যাই হোক ।
বৃষ্টির মাঝে ভিজেই সবাই খেলা দেখছে ।
একটু সময় পর খেয়াল করলাম কাকা আমাকে জড়িয়ে ধরে বসে খেলা দেখছে ।
ভালো লাগায় আমার মন ভরে যাচ্ছিল ।
আমি পেছন দিকে ইচ্ছে করে আরেকটু চেপে বসলাম । কাকার শরীর ঘেঁষে ।
মনে মনে আল্লাহ্‌ কে বলছিলাম, বৃষ্টি যেন কখনও শেষ না হয় ।
ছোট্ট মনে কি যে আনন্দ হচ্ছিল বলে বুঝাতে পারব না ।

যাই হোক । খেলা শেষ হল । কিন্তু বৃষ্টি আর থামে না ।
বৃষ্টির জন্য আমাদের বাড়িতে যেতে যেতে সন্ধ্যা হয়ে গেল ।
দুজন একটা নৌকায় উঠলাম ।
পুরো নৌকাতে আমি আর কাকা । আর একজন মাঝি ।
নৌকার চারপাশে গাড় অন্ধকার ।
ইচ্ছে করছিল কাকা কে জড়িয়ে ধরি ।
কিন্তু ভয় পাবার কারণে তা করি নি ।
আমার ছোট্ট মনে এতটা সাহস ছিল না ।
আমি নৌকায় দুই পা মেলে বসে আছি ।
একটু পর কাকা আমার দুই পায়ের উরুতে মাথা দিয়ে শুয়ে পড়ল ।
আমিতো পুরা অবাক ।
এসব কি হচ্ছে !
আমি স্বপ্নের মাঝে নাইত !
আমি অনেক কষ্টে নিজেকে সামলে রেখেছি ।
খেয়াল করলাম কাকা আমাকে আজ তুমি তুমি করে বলছে । অথচ অন্যসময় সে আমায় তুই করে বলে ।
আমি চুপচাপ বসে আছি । কাকার মাথা কোলে নিয়ে ।
দূরের বাড়ি থেকে আলো আসছে ।
আসে পাশে ঝি ঝি পোকা ডাকছে ।
আমার মনে হচ্ছিল আমি কোন সিনেমার ভেতর অভিনয় করছি ।

যাই হোক । শেষ পর্যন্ত আমরা আমাদের বাড়িতে পৌঁছলাম ।
তখন রাত ৮ টা কি ৯ টা বাজে ।
কাকা আমাকে বাড়িতে দিয়ে তাদের বাড়ি চলে গেল ।
আমি গোসল করে খাওয়া দাওয়া সেরে নিলাম ।
শুয়ে আছি আমার ঘরে ।
সারা দিনের কথা ভাবছি । কি হল না হল । এসব ।
আমার কেন যেন মনে হচ্ছিল কাকা আমায় মিস করছে । কাকা হয়ত আবার আসবেন আমার কাছে ।
একটু পরেই কাকার গলা শুনতে পেলাম আমার ঘরের বাইরে ।
আমি দরজা খুলতেই কাকা ঘরে ঢুকে আমার বিছানায় বসল ।
ঘরে একটা হারিকেন জ্বালানো ।
তার আলোয় আমি কাকাকে দেখলাম ।
কেমন অন্যরকম কাকা ।
কাকা আমার পাশে বিছানায় শুয়ে পড়ল । এটা ওটা নিয়ে গল্প করা শুরু করল ।
কাকা আমার হাতটা নিয়ে তার বুকের উপর রাখল ।
আমি অবাক !
দুজনেই চুপ করে আছি ।
আমার মনে হচ্ছিল আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে ।
কাকা আমাকে জড়িয়ে ধরল ।
আমার ঠোঁটে ঠোঁট রাখল ।
জীবনের প্রথম কাওকে চুমু খেলাম ।
আমার মনে হচ্ছিল আমি হাওয়ায় ভাসছি । মরে যাব আজ । স্বপ্ন পূরণ হলে কেমন লাগে!
তখন আমি কাকার বুকে মুখ লুকাই ।
বুঝতে পারি আমরা দুজন দুজনকে প্রচণ্ড ভালোবাসি ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s