পাশের বাড়ির ছেলে আর আমি


কিছুদিন আগে আমাদের বাড়িতে একটা উৎসব ছিল ।
বাড়ি ভর্তি মেহমান ।
সারাদিন ভালই ছিল । কিন্তু রাতের বেলা সমস্যা হল এতো মানুষ থাকবে কই ।
পাশের বাসার সবাই আমাদের সাথে অনেক ঘনিষ্ঠ ।
অ্যান্টি আংকেল আর তাদের দুই ছেলে আমাদের আত্মীয়ের মতই ।
তাই ওদের বাসায় থাকতে গেলাম ।
ওদের অর্থনৈতিক অবস্থা তেমন একটা ভালো ছিল না ।
কিন্তু ওরা যথেষ্ট আন্তরিক ছিল ।
উনাদের দুই ছেলের মাঝে বড় ছেলে একটা চাকরি করত আর পাশাপাশি পড়াশুনাও করত ।
আর ছোট ছেলেটা ক্লাস সিক্সে পড়ে ।
বড় ভাই এর নাম সাকিল আর ছোটটার নাম সাফিন ।
সাকিল ভাই এর মাঝেই মাঝেই নাইট ডিউটি থাকত ।
সেদিনও তার ডিউটি ছিল ।
তাই রাতে আমি সাফিন এর সাথে শুলাম ।
ওদের ২ টা রুম ।
একটা রুমে অ্যান্টি আর আংকেল । অন্য রুমে দুই ভাই থাকত ।
যাই হোক । রাতে ঘুমাতে গেলাম সাফিনের সাথে ।
তখনও আমার কল্পনাতেও আসে নাই একটু পর কি হতে পারে ?
ঘুমানোর আগে আমি সাফিন আর আমার মাঝে একটা বালিশ রেখে শুলাম ।
চোখটা একটু লেগে আসছিল । তখন সাফিন বলল , ভাইয়া । আপনার গলার চেইনটা খুব সুন্দর ।
আমি বললাম, তাই ? পরবে তুমি ?
সাফিন বলল, না ভাই । আপনাকে মানাইসে । আপনি অনেক কিউ ট তাই ।
আমি বললাম, তুমিও অনেক কিউ ট ।
দুজন লাইট অফ করে ঘুমিয়ে পরলাম ।
এর ঠিক ঘণ্টা খানেক পর খেয়াল করলাম সাফিন এর হাত আমার পেনিস এর উপর ।
আমি ভাবলাম হয়তো ঘুমের মাঝে এমনিতেই এমন করসে ।
আমি ওর হাত সরিয়ে দিলাম । খেয়াল করলাম আমার আর ওর মাঝখানের বালিশ টাও নাই ।
আমি আবার ঘুমানোর চেষ্টা করলাম ।
এবার একটু পর সাফিন আমার বুকে হাত দিল ।
আমি এবারও তার হাত সরিয়ে দিলাম ।
চোখটা লেগে এসেছে তখনই আবার টের পেলাম আমার থ্রি কোয়ার্টারের উপর দিয়ে সাফিন আমার পেনিস ধরছে ।
আমি এবার আর বাধা দিলাম না । কি হয় সেটা দেখার জন্য অপেক্ষা করছি ।
খেয়াল করলাম । থ্রি কোয়ার্টারের উপর দিয়ে সাফিন আমার ডিক মুঠ করে ধরে আছে ।
চাপ দিচ্ছে আসতে আসতে ।
একটু পর সে আমার প্যান্টের চেইন খুলে ফেলল ।
আমার হার্ট বিট ক্রমেই বেড়ে যাচ্ছে ।
সাফিন ওর নরম হাতে আমার সেমি হার্ড ডিক মুঠ করে ধরে ।
এবার আমি আর দেরি করলাম না ।
সাফিন কে জড়িয়ে ধরে চুমু খেতে লাগলাম ।
কানে কানে বললাম, এতো দুষ্টুমি কই শিখলে ?
সাফিন কিছু বলে না । সে সমান তালে আমার পেনিস টিপছে ।
আমি আমার থ্রি কোয়ার্টার খুলে দিলাম ।
সাফিন এক শরীর একটু নাদুস নুদুস । নরম ।
ওর প্যান্ট আর টি শার্ট খুলে ফেললাম ।
ঠোঁটে ঠোঁট ডুবিয়ে চুমু দিলাম ।
ওর বুকগুলো হালকা নরম ।
আমি হাত রাখলাম ওর বুকে ।
মনে হচ্ছিল আমার শরীরে আগুন জ্বলে যাচ্ছে ।
এতো নরম দুধ হয় ছেলেদের ?
আমি এবার ঠোঁট নামিয়ে আনলাম ওর বুকে । নরম বুকের মাঝে সুখ খুঁজতে লাগলাম ।
জিব ছুয়াতেই ও আমার মাথার চুল খামচে ধরল ।
সাফিন এবার আর থাকতে পারল না ।
সে উঠেই আমার পেনিস মুখে নিয়ে সাক করতে লাগলো ।
আমি একটু অবাক । সে এতো সুন্দর করে সাক করা কোথায় শিখল ?
মনে হচ্ছিল আমার বীর্য বেড়িয়ে যাবে ।
আমি ওর মাথা সরিয়ে দিলাম ।
ও আবার অস্থির হয়ে সাক করতে লাগল ।
ওর নিঃশ্বাস যখন পেনিসের গোঁড়ায় পড়ছিল আমি কেপে কেপে উঠছিলাম ।
এবার আর পারলাম না ।
ওর পা দুইটা কাঁধে তুলে নিলাম ।
ওর কোমরের নিচে একটা বালিশ দিলাম ।
মুখ থেকে থুথু এনে আমার পেনিস আর ওর পেছন দিকে লাগালাম ।
একবারেই ধাক্কা দিয়ে ঢুকিয়ে দিলাম আমার পেনিস ওর ভেতরে ।
ও কষ্ট পেলেও কিছু বললও না ।
কারণ পাশের ঘরে ওর মা বাবা আছে ।
আমি পেনিস টা বের করে আরও থু থু দিই । আবার পুশ করি ।
এবার আগের চাইতে সহজে ঢুকল ।
জোরে চেপে ধরলাম ।
সাফিন তার দুই হাত দিয়ে তার ফোলা ফোলা বুক চাপ্তেছে ।
এটা দেখে আমি ফাক করার স্পীড আরও বাড়িয়ে দিলাম ।
ওর ডান পা মুখের কাছে নিয়ে পায়ের আঙ্গুলে কামর দিলাম । আর জোরে জোরে ঠেলতে লাগলাম পেনিস ।
ওর ভেতরটা আগুন গরম ।।
মনে হচ্ছে আমার সব কিছু পুরিয়ে দেবে ।
একটু পর বুঝতে পারলাম আমার বের হবে । আমি জোরে দুইটা ধাক্কা মেরে ওড় বুকে শুয়ে পরলাম ।
পেনিস বের করতেই দেখি পুরা পেনি স রক্তে ভেজা ।
ওর চোখে পানি ।
আমার মায়া হোলো
ওর ঠোটে চূমূ দিলাম । মাথায় হাত বুলিয়ে দিলাম । বুকে আদর দিলাম ।
ও আমাকে জড়িয়ে ধরল ।

One thought on “পাশের বাড়ির ছেলে আর আমি

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s