মামা ভাগ্নের গে সেক্স

1034_476974829014694_1531142523_n
আমি মুন । বয়স ২৭ এর কাছাকাছি ।
আমি আজ যখনকার কথা বলব তখন আমার বয়স ১২ কি ১৩ হবে ।
তখন আমাদের বাড়িতে টি ভি ছিল না ।
তাই আমাদের পরিবারের সবাই পাশের বাড়ি যেতাম টি ভি দেখতে ।
যাই হোক ।
একদিন রাত ৯ টায় বাসার সবাই গেল পাশের বাড়িতে টি ভি দেখতে ।
আমি সেদিন একটু ক্লান্ত ছিলাম ।
তাই যাই নি ।
রুমে শুয়ে ঘুমাচ্ছিলাম ।
ঘুম ভাঙল একটা অনাকাংখিত স্পর্শে ।
আমি বুঝতে পারছিলাম কেউ আমার থ্রি কোয়ার্টারের উপর দিয়ে আমার পেনিস হাত বুলাচ্ছে ।
আমি চোখ মেলে যা দেখলাম তাতে আমি পুরাই অবাক । আমার ২ বছরের বড় ভাগ্নে ( চাচাত বোনের ছেলে যে আমাদের বাসায় বেড়াতে এসেছিল ) আমার ধোনের উপর হাত বুলাচ্ছে ।
আমি কি বলব বুঝতে পারছিলাম না ।
লজ্জায় কোন কথা বলছি না । এদিকে আমার ধোন ফুলে উঠতে শুরু করেছে ।
আমি কি করব ? চুপ করে রইলাম । এমন পরিস্থিতিতে সবাই বোধহয় এভাবে কিংকর্তব্যবিমু্ঢ় হয়ে যায় ।
আমার অবস্থাও তাই হল ।
আমরা দুজনই কেও কোন কথা বলছি না ।
আমার ভাগ্নেই প্রথম কথা বলল, মামা মামা ! তোমার ধোনটা অনেক মোটা আর লম্বা । আমি ধরেছি বলে কি রাগ করেছ ?
আমি কি বলব ! ভোদার মত ওর দিকে তাকিয়ে রইলাম ।
কেউ যদি ধোন ধরে এভাবে চাপাচাপি করে তখন কারো মাথা ঠিক থাকার কথা নয় ।
আমি চুপ করে রইলাম ।
বুঝলাম ভাগ্নে নিশ্চয়ই নিয়মিত সেক্স করে কারো সাথে ।

ভাগ্নে নাহিদ কিছু না বলে আমার প্যান্ট এর জিপার খুলে ফেলে ।
আমার দিকে তাকিয়ে হাসে ।
আমি খেয়াল করে দেখি রুমের দরজা খোলা ।
ধরমর করে দৌড়ে গিয়ে রুমের দরজা লাগাই ।
তারপর বিছানায় শুয়ে পড়ি ।
আমার মাথা তখন খুব গরম ।
নিজের উপর কন্ট্রোল নেই ।
প্যান্ট খুলে মেঝেতে ফেলে দিলাম ।
বালিশে হেলান দিয়ে দুই পা ফাঁক করে বসলাম ।
আমি দেখতে চাচ্ছি নাহিদ কি করে ।
নাহিদ আমার ধোন মুঠোয় নিয়ে নাড়ানাড়ি করে । টিপে । আমি আরামে হালকা চোখ বুঝি ।
একটু পরে সে বলে, মামা ! আমি ধোনটা মুখে নিই ?
আমি মনে মনে ভাবলাম , বলে কি এই ছেলে ?
আমি চুপ ।
নাহিদ মাথা নুইয়ে আমার ধোনটা ডান হাতে ধরে মুখে পুরে নিল।
আমার শরীরটা ভাললাগায় অবশ হয়ে যাচ্ছিল ।
জীবনের প্রথম কেউ আমার ধোন মুখে নিল । এটা যে কেমন অনুভূতি লিখে বুঝানো যাবে না ।
নাহিদ এক হাতে আমার ধোন ধরে চুষছে আর এক হাতে তার প্যান্ট এর হুক খুলে প্যান্ট খুলে ফেলল ।
ওর ধোনের উপর মখমলের মত বাল ।
আমি অবাক হয়ে দেখলাম ও একই সাথে আমার ধোন চুসে চলেছে সাথে সাথে নিজের ধোন সমান তালে খেঁচে চলেছে ।
নাহিদ বলে, মামা । আমার ধোনটা একটু খেচে দাও ।
ও আমার দিকে ধোন রেখে আমার ধোন চুষছে ।
আমি হাত বাড়িয়ে ওর ধোন ধরলাম । ওরটা আমার মত এতো বড় না ।
আমি বললাম, নাহিদ ! এসব কই শিখলি ?

নাহিদ ধোন চুষা বন্ধ করে বলে, আমরা দুই তিন বন্ধু মিলে প্রায়ই এসব করি ।
আমি পুরাই টাস্কি খাইলাম ।
নাহিদ আমাকে বলে, তুমি কি আগে চুদাচুদি করো নি ?
আমি মাথা নাড়লাম ।
নাহিদ বলে, ঠিক আছে । আমি আজ সব শিখিয়ে দিব ।
আমি বললাম, যা করবি তাড়াতাড়ি কর । বাসার সবাই যে কোন সময় চলে আসতে পারে ।
নাহিদ আমাকে বলে, তুমি কি আমার ধোন তোমার পাছায় নিতে পারবে ?
আমি বললাম, তোর কি মাথা খারাপ? আমি পারুম না ।
নাহিদ হাসে । বলে, ঠিক আছে । তোমার নেয়া লাগব না । আমিই তোমারটা নিব ।
নাহিদ তার মুখ থেকে থুথু এনে আমার ধোনে মাখল । তার পাছার ফুটোতেও মাখল বেশ খানিক টা ।
আমি শুধু চেয়ে চেয়ে দেখছি সে কি করে ।
আমি পা দুইটা মেলে বসা ।
নাহিদ আমার ধোনটা এক হাতে ধরে তার পাছায় সেট করল ।
ওর দুইপা আমার কোমরের দুই পাশে ।
এবার নাহিদ ধীরে ধীরে বসতে লাগলো ।
আমার পুরো ধোনটা ওর পাছার ভেতর অদৃশ্য হয়ে গেল ।
আমি ভয়ে কেমন যেন লাগছিল ।
পাছার ভিতর গরম লেগে আমার ধোন আরও খেপে গেল ।
এবার নাহিদ আমার দুই কাঁধে ভর করল দুই হাত দিয়ে ।
পাছাটা উপর নিচ করতে লাগল ।
আমি দর্শকের মত সব দেখছি ।
আমি এবার আস্তে করে আমার কোমর উপরের দিকে ঠেলে দিলাম ।
নাহিদ আহ আহ করে উঠল ।
আমি ভাবলাম ও ব্যথা পাইসে । তাই থেমে গেলাম ।
নাহিদ বলল, থামলে কেন । জোরে চুদতে পার না ?
আমি পুরাই অবাক । নাহিদের মুখে খারাপ কথা শুনে । এসব কি বলে ?
আমি এবার আবার কোমর নিচ থেকে ঠেলে দিচ্ছি ।
উপর থেকে নাহিদ তার পাছা ঠেলছে ।
সে এক অদ্ভুত ব্যাপার ।
তালে তালে কেমন একটা নেশা ধরানো শব্দে আমার সেক্স আরও বেড়ে যাচ্ছিল ।
নাহিদ কোমর নীচে ঠেলছে আর উঠ বস করছে ।
ওর কপাল থেকে ঘামের বিন্দু বিন্দু ফোঁটা আমার শরীরে পড়ছে ।
ও নিজের ধোন নিজে খেঁচে যাচ্ছে ।
একটু পর বললাম, ভাগ্নে । আমার বোধহয় মাল বেরুবে । আমি কি করব ?
নাহিদ তাড়াতাড়ি পাছা থেকে টান মেরে ধোন বের করে ।
আমার ধোন থেকে সাথে সাথে মাল ছিটকে ছিটকে পিচকারির মত সব মাল ছড়িয়ে পড়ল । আমার পেটে । নাহিদের মুখে ।
আমার মনে হচ্ছিল আমার শরীর থেকে কি যেন ভারি কিছু বেড়িয়ে গেল ।
মনে হচ্ছিল আমি হাওয়ায় ভাসছি ।
পুরাই ক্লান্ত ।
নাহিদ তার ধোন তখনও খেঁচে চলেছে । ওর ধোন বেয়ে একটু পর থকথকে মাল বেরুল ।
ওর হাত মালে ভরে গেল ।
ও আমার পাশে শুয়ে পড়ল ।
নাহিদ আমাকে বলল, মামা । ভয় পাইস ?
আমি বললাম, একটু । আসলে আমি নার্ভাস ছিলাম ।
নাহিদ হাসে । বলে । নো প্রবলেম । নেক্সট টাইম ঠিক হইয়া যাইব ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s