এক পলক


বার বার হাত ঘড়ি দেখছি আমি ।
একটু পরেই পরীক্ষা শুরু হবে । অথচ এখনও বাস পাই নি ।
সেদিন একটু দেরি করেই বের হয়েছিলাম । বাসা থেকে ।
আমি যে কেন মাঝে মাঝে এমন আলসেমি করি সেটার উত্তর আমিও জানি না ।
যাই হোক ।
একটু পরেই বাস এল ।
পড়িমরি করেই বাসে উঠলাম ।
ভাগ্য সহায় ছিল । তাই একটা খালি সিটও পেলাম ।
আমার পাশের সিটে যে ছেলেটা ছিল । সে অদ্ভুত রকম সুন্দর ।
চোখে একটা সানগ্লাস ।
আমি একটু পর পর তাকাচ্ছিলাম ।
একটু পর বাস এসে আমার গন্তব্যে থামল ।
আমি তাড়াহুড়ো করে নামলাম ।
খেয়াল করলাম আমার সাথে সাথে ওই ছেলেটাও নামল ।
এবার অবাক হবার পালা !
ছেলেটা তার হাতের মুঠোয় রাখা সাদা ছড়িটা খুলে বাস থেকে নামল ।
আমার মনটা খারাপ হয়ে গেল !
ইচ্ছে করছিল ওর হাত ধরে রাস্তা ধরে হাঁটি ।
কিন্তু হাতে সময় নেই ।
এক্সাম হলে কিছুক্ষনের মাঝেই পৌঁছতে হবে ।
সামনে একটা খালি রিকশা পেয়েই লাফিয়ে উঠলাম ।
পেছন ফিরে তাকালাম ।
চলন্ত রিক্সার পেছনে ক্রমশ ছোট হয়ে আসছে ছেলেটার অবয়ব ।
আমার বুকের বাম পাশে একটা ব্যথা অনুভব করলাম ।
জীবন কি অদ্ভুত !

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s