পাশের বাড়ির কাকা


আমি চট্টগ্রামের ছেলে ।
আমি অনেক আগে থেকেই ছেলেদের লাইক করতাম । কিন্তু কাউকে কখনও বলার সাহস পাই নি ।
আমাদের পাশের বাসায় ৪০ বছর বয়সী একজন ডাক্তার থাকত ।
উনি অবিবাহিত ছিলেন । একাই থাকতেন ।
আমি উনাকে কাকা বলে ডাকতাম । উনার নাম আলতাব । আমি প্রায়ই নানা অজুহাতে কাকার সাথে কথা বলতাম ।
কাকা দেখতে অনেক সুন্দর । হ্যান্ড সাম । যে কোন মেয়ে তাকে দেখলেই পাগল হওয়ার কথা । কিন্তু এত বছরেও তিনি যে কেন বিয়ে করেননি সে হদিস কেউ পায় নি ।
সবাই আড়ালে বলত উনি নাকি কোন মেয়েকে খুব ভালবাসতেন । পরে নাকি ছেঁকা খেয়েছেন ।
কাকাকে সকাল বিকাল দেখতাম । দূর থেকে । কাকাকে দেখলেই আমার বুকের ভেতর কেমন করে উঠত । বলে বুঝাতে পারব না ।
মনে হত একটু যদি উনাকে জড়িয়ে ধরতে পারতাম !
৪০ বছর বয়স হলে কি হবে ? কাকার শরীরটা খেলোয়াড়দের মত । রোজ সকালে নিয়ম করে দৌড়ান ।
ব্যায়াম করেন ।
উনার হাতের মাশল খুবই আকর্ষণীয় । বুকের গঠন শার্ট এর উপর দিয়ে বুঝা যেত । উনার এসব পুরুষালী সৌন্দর্য দেখে আমি ভেতরে ভেতরে পুড়ি ।
কিন্তু কি করব বুঝে উঠতে পারি না ।
এমনিতে উনার সাথে প্রতিদিনই টুকটাক কথা বার্তা হত ।
যাই হোক ।
একদিন সুযোগ আসল ।
আমি ভাবলাম যে করেই হোক সুযোগটা কাজে লাগাতে হবে ।
সেদিন আমাদের বাসায় গ্রামের বাড়ি থেকে অনেক মেহমান এসেছে ।
রাতে ঘুমানোর জায়গা নেই । তখন বাবা মা বলল, তপু তুই পাশের বাসায় তোর কাকার সাথে ঘুমাতে যা । বাবা আমাকে নিয়ে পাশের বাসায় গেল ।
কাকাকে বলল, ভাই । আজ একটু কষ্ট দিব আপনাকে ।
কাকা বলে, নাহ । কষ্ট কিসের ? প্রতিবেশীরাই সুখে দুখে সাহায্য করবে । আর এটা আর এমন কি ? তপু থাকুক আমার সাথে । সমস্যা নেই ।
বাবা আমাকে কাকার বাসায় দিয়ে চলে গেল ।
আমার বুক আনন্দে দিব দিব করছে ।
কতদিন পর মনের আশা পূর্ণ হবে ।
আমি নিজেকে খুব ভাগ্যবান মনে করেছিলাম ।.

কাকা আমাকে নিয়ে তার ড্রইং রুমে বসে টি ভি দেখছেন ।
এইচ বি ও তে একটা একশন মুভি চলছে । আমি টি ভি দেখি না । লোভীর মত কাকাকে দেখি । কাকা এখন খালি গা । শুধু একটা লুঙ্গি পরা । তার লোমশ বুক দেখে আমার থ্রি কোয়ার্টার এর সামনের দিকটা ফুলে উঠতে লাগলো ।
আমি দুই পায়ে চেপে আছি আমার পেনিস ।
উনার নিপল গুলো সবচাইতে আকর্ষণীয় । বৃন্তটা বেশ বড় । বৃন্তের চারপাশে ঘন লোম । ইচ্ছে করে মুখ রাখি ।
কাকা আমার দিকে তাকিয়ে বলে, কি ব্যপার ! ঘুমাবে না ?
আমি বললাম, হালকা ঘুম পাচ্ছে ।
কাকা বলল, ওকে চল । ঘুমাতে যাই ।
কাকা আমাকে নিয়ে তার বেডরুমে গেলেন । বেডরুমে একটা ড্রেসিং টেবিল । পিসি আর একটা ওয়্যারড্রোব ।
কাকা বললেন , শুয়ে পড়।
আমি কিছু না বলে গুটিসুটি হয়ে খাটের দেয়ালের দিকে শুলাম ।
কাকাও শুল । লাইট নিভিয়ে একটা ডিম লাইট জ্বালিয়ে দিল । নীল রঙের আলোয় ঘর ভরে গেল ।
একটু পরেই টের পেলাম কাকা ঘুমিয়ে গেছে । কিন্তু আমার আর ঘুম আসে না ।
উনার শরীর থেকে অদ্ভুত একটা যৌন গন্ধ আসছে । আমি কি পাগল হয়ে যাচ্ছি কিনা কে জানে ?
কি করব বুঝে উঠতে পারছিলাম না ।
আমি উনার দিকে কাত করে শুই । উনার মুখের দিকে তাকাই । উনার ঠোঁটের উপর গোঁফ আছে । আমার খুব ভালো লাগে উনার গোঁফটা । কেমন যেন পুরুসালি সৌন্দর্য ।
উনার বুকের দিকে তাকাই । ঘন লোমের জঙ্গল । সেখান থেকে নাভি ।
উফ । আমি আর কল্পনা করতে পারছি না ।
লুঙ্গীর গিট এর নিচের জায়গাটা হয়ত আর সুন্দর !
কে জানে !
যদি একটু দেখতে পারতাম ?
কাকার প্রতি আমার যে শুধু যৌন আকর্ষণ ছিল সেটা না । আমি মনে মনে তাকে অসম্ভব ভালবাসতাম । উনাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতাম । আদর করতাম সপ্নে উনাকে ইচ্ছেমত ।
আমি এক কাজ করলাম । ঘুমের ভান করে আমার বাম হাত তার পেটের কাছে রাখলাম ।
সাথে সাথে আমার পেনিস দাঁড়িয়ে গেল । পেটে একদম মেদ নেই । মনে হয় পুরোটা শরীর পেটানো ।
আমি এবার হাত টা নাভি থেকে নিচের দিকে নিয়ে যাই ।
কাকা কিছু বলে না । উনি নাক ডাকছে ।
আমি এবার ইচ্ছে করে উনার লুঙ্গির গিট খুলে লুঙ্গির বাধন আলগা করে দিই ।
কাকা দুই পাশে পা ছড়িয়ে শুয়ে আছে ।
আমি সাবধানে উনার লুঙ্গিটা নামিয়ে দিই । উরু পর্যন্ত ।
এবার যা দেখলাম ! তাতে আমার সারা শরীর আগুন জ্বলে গেল ।
বিশাল একটা পেনিস । একদিকে কাত হয়ে পরে আছে । মাঝে মাঝে হালকা হালকা নড়ে উঠছে ।
আমি কিছু না ভেবেই আমার বাম হাত রাখলাম পেনিসের উপর ।
উফ ! পুরো গরম হয়ে আছে । কেমন নরম মাংসের তাল । আমি হাতে নিয়ে পাঞ্চ করতে লাগলাম । খুব আরাম লাগছিল আমার । আমার পেনিস টাও আরেক হাতে নাড়তে লাগলাম ।
কাকার পেনিস দাঁড়িয়ে গেল ।
আমি এবার হাত ছেড়ে দিয়ে ওটা দেখছি হালকা নীল আলোয়।
অদ্ভুত সুন্দর !
পেনিসটা মাঝে মাঝে দুলছে ।
আমি এবার আমার মাথাটা নিয়ে পেনিসের কাছে নিলাম । পেনিস টা বাম হাতে ধরে ওটার মাথায় ঠোঁট ছুয়ালাম ।
সাথে সাথেই কাকা ধপ করে শুয়া থেকে উঠে আমাকে জড়িয়ে ধরল ।
আমাকে এলোপাথাড়ি কিস করতে লাগল ।
কি হচ্ছে হথাত এসব ভাবার আগেই উনি আমাকে বিছানায় চেপে ধরে কিস করতে লাগলেন ।
আমার ঠোঁট দুইটা সমানে চুষতে লাগলেন ।
আমি ও আদর পেয়ে উম উম করছিলাম ।
উনি আমার টি শার্ট টেনে খুলে ফেললেন । আমার বুকে মুখ রাখতেই আমি চিৎকার দিয়ে উঠলাম । উনি আমার বুকের নিপলে অনেক আদর দিতে লাগলেন ।
আমি শুধু আহ আহ করে উত্তর দিচ্ছিলাম ।
এবার উনি উনার বুকের নিপলে আমার মুখ টেনে ধরলেন ।
আমি আর দেরি না করে উনার নিপল চাটতে লাগলাম ।
উনার বগলের পুরুষালী ঘামের গন্ধ নাকে আসতেই আমি আর ঠিক থাকতে পারলাম না ।
বুকের নিপলে জোরে কামড় দিলাম ।
উনি বোধহয় হালকা ব্যথা পেলেন । উহ করে উঠলেন ।
এবার উনি দেয়ালে হেলান দিয়ে দু পা মেলে বসলেন ।
উনার দুই পা দুইদিকে ছড়ান ।
লুঙ্গি নেই ।
উনার পেনিস দাঁড়িয়ে আছে থামের মত ।
আমি হিংস্র বাঘের মত উনার পেনিস পুরোটা মুখে নিলাম ।
মনে হল অনেক দিনের না খাওয়া মানুষ আমি ।
আমি উনার পেনিস চুষতে লাগলাম ।
কখনও জোরে । কখন আসতে ।
উনি কিছু বলছেন না । উনার দুই হাত উনার মাথার পিছনে ।
আমি উনার নগ্ন শরীরের দিকে তাকাচ্ছি আর সমানে পেনিস চুসে যাচ্ছি ।
কাকা এবার আমাকে নগ্ন করে আমার পেনিস মুখে দিলেন ।
আমার পেনিস তেমন বড় না ।
উনি পেনিস মুখে নিতেই আমার পেনিস গল গল করে মাল ছেড়ে দিল ।
অবাক হয়ে দেখলাম কাকা ঐ মাল খেয়ে ফেলল ।
আমি বললাম, কাকা । আপনি এটা খেলেন যে !
কাকা বলল, দেখ । আমি এটা খাই । আমি সমকামি । তাই বিয়ে করি নি ।
আমি এই কথা শুনে মনে মনে আফসোস করলাম । এতদিন কেন যে জানিনি । তাহলে দুজনে মিলে বেশ মজা করতে পারতাম ।
কাকা এবার উঠে তার ড্রেসিং টেবিল থেকে লশন নিয়ে আসল ।
আমি দাঁড়ানো অবস্থায় উনার শরীরের সৌন্দর্য দেখলাম ।
পুরোই সেক্স মুভি তে দেখা নায়কের মত ।
কাকা আমাকে উপুড় করে শুয়ালেন ।
আমার পাছার ফাঁকে খানিকটা লশন লাগিয়ে তার পেনিসের মাথাতেও লশন দিলেন ।
এবার আমাকে বললেন, তুমি ইজি হও । জোরে শ্বাস নাও ।
আমি রিলাক্স হলাম ।
উনি এবার আমার ঘাড়ে তার ঠোঁট বুলালেন ।
তার ধোনের মাথাটা একটু ঢুকালেন ।
আমি হালকা ব্যথা পেলাম ।
উনি আমার কোমরের উপরের অংশে হালকা মেসেজ করে আবার ঢুকালেন ধোন ।
আমি বললাম, আমার কষ্ট হচ্ছে খুব ।
কাকা এবার নড়লেন না ।
পেনিস আমার ভেতরে রাখা অবস্থায় আমার উপর শুয়ে আমাকে আদর করতে লাগলেন ।
একটু পর আস্তে আস্তে ঠেলা দিতে লাগলেন ।
আমি আহ আহ করে উঠলাম ।
একই সাথে ব্যথা আর আনন্দ দুটো পেলাম ।
আমি এর আগে কখনও এনাল করি নি ।
তাই নিজে কোন রেসপন্স করতে পারছিলাম না ।
কাকাই আমাকে একটানা ৮-১০ মিনিট করল । এভাবে ।
একটা সময় উনি জোরে আহ করে উঠলেন । বুঝলাম, উনার বেরুচ্ছে ।
আমার ভেতরে গরম কিছুর অস্তিত্ব টের পেলাম ।
কাকা আমাকে জড়িয়ে ধরে কানের কাছে বলল, তপু । আজ থেকে তুমি আমার বউ ।
আমি তখন ব্যথায় কাঁদছি ।
কাকা উঠে আমাকে নিয়ে বাথরুমে গেলেন ।
আমার ঐ জায়গা পরিস্কার করে দিলেন ।
নিজেও পরিস্কার হলেন ।
আমাকে কি যেন ট্যাবলেট খেতে দিলেন ।
তারপর আমাকে বুকে জড়িয়ে নিয়ে আমার মাথায় আদর দিয়ে বলেন, এতদিন বল নি কেন ?
আমি বললাম, ভয়ে !
উনি বললেন, ওরে দুষ্ট ! তোমার আবার ভয়ও আছে ।
আমি কাকার বুকে মুখ লুকাই । আমার অনেক ভালো লাগে । মানুষের জীবনে স্বপ্ন পূরণ হলে কেমন অনুভুতি হয় সেটা আমি এখন আমার বুকের ভেতর টের পাচ্ছি ।
এরপর থেকে উনার সাথেই আমার সমকামি সম্পর্কের শুরু যা এখন পর্যন্ত আছে ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s