প্রথম সমকামী ভালবাসার গল্প

530634_595134837169786_1175069117_n
আমি খুলনার ছেলে । আজ আমি আমার জীবনের প্রথম সমকামী ভালবাসার গল্প বলব । ওর সাথে আমার পরিচয় ফেসবুকের মাধ্যমে । চ্যাট করে জানতে পারলাম ও খুলনাতে থাকে । সবচাইতে অবাক করা ব্যপার হল ও থাকত আমার বাসার খুব কাছেই । মাত্র ৫ মিনিট লাগত ওর বাসা থেকে আমার বাসায় আসতে । ফেসবুকে পরিচয়ের আগে আমরা কেউই কাওকে চিনতাম না । ফেসবুকে কথা বলার পর আমরা একে অপরের ফোন নম্বর আদান প্রদান করলাম ।
এরপর থেকেই অনেক কথা বলতাম দুজনে । কখনও মাঝরাতে । কখনও সকালে । কখনো দুপুরে ।
অদ্ভুত একটা ভাললাগা ওর প্রতি জন্ম নিল । আমি বুঝতাম ও আমাকে অনেক ফিল করে । কিন্তু ও মুখে কিছুই বলত না ।
যাই হোক । দুজনে মিলে একদিন ঠিক করলাম দেখা করব ।
ঠিক হল পরদিন বিকেল ৫ টায় আমরা দেখা করব ।
পরদিন দুরু দুরু বুকে গেলাম ওর সাথে মিট করতে ।
আমার পরনে ছিল রেড টি শার্ট , ব্লু জিন্স ।
ও আমাকে দেখে হা হয়ে তাকিয়ে থাকে ।
আমি বলি, এই । মুখ বন্ধ কর । মাছি ঢুকবে ।
ও আমার চোখের দিকে তাকিয়ে বলে, ও মাই গড । তুমি কি জানো তুমি তোমার ছবির চাইতে ১০০ গুন সুন্দর ।
আমি হেসে বললাম, মোটেই না । তুমি আমাকে ভালবাস । তাই এসব বলছ আমরা দুজন হাঁটতে হাঁটতে নদীর পাড়ে যাই ।
দুজন পাশাপাশি বসি ।
ও বলে, তোমার হাতটা একটু ধরি ?
আমি বলি, একটু কেন ? পুরোটাই ধর ।
ও বলে , আমার বিশ্বাস হচ্ছে না ।
আমি বলি, তোমার গায়ে চিমটি কেটে দেখ ।
তখন সূর্য ডুবতে বসেছে ।
আকাশ জুড়ে মায়াবী লালচে আলোর ছটা ।
ও আমাকে বলে, এমন করে যদি সারাজীবন বসে থাকা যেত !
আমি ওকে বলি, এই ছেলে ! তুমি কি পাগল হয়ে গেলে ?
ও আমাকে বলে, তোমার মত সুন্দর আর হ্যান্ড সাম পোলা পাইলে যে কেউ পাগল হয়ে যাবে ।
আমি হা হা করে হেসে উঠলাম ।

ক্রমশ চারপাশ আঁধার হয়ে আসছে ।
আচমকা ও আমাকে জড়িয়ে ধরে চুমু খেল । নরম করে । গাড় চুমু ।
আমার ভালো লাগছিল ।
কেমন একটা রিম ঝিম করে উঠল আমার রক্তের ভেতর ।
আমি ওকে বুকে জড়িয়ে ধরলাম । বললাম, চল যাই । রাত হয়ে আসছে । বেশি দেরি হলে বাসায় বকা খেতে হবে ।
ও আমার হাত ধর উঠল ।
সেদিনের মত দুজন বাসায় চলে আসলাম ।

সেদিন রাত ১২ টায় ও আমাকে ফোন দেয় ।
বলে, সোনা ! আমি আর থাকতে পারছি না !
আমি বলি, কেন ? কি হয়েছে ?
ও বলে, তোমার কথা ভেবে শরীর গরম হয়ে গেছে !
আমি হা হা করে হেসে বললাম, আচ্ছা ! ঠিক আছে । আমার বাবুনিটার শরীর কাল আদর করে ঠাণ্ডা করে দিব ।
ও বলে, এখন একটা চুমু দাও না !
আমি তখন সেল ফোনেই চুমু দিয়ে বললাম, এই দিলাম । বললাম, এখন শুয়ে পরো । কাল আমার ক্লাস আছে । গুড নাইট ।
দুজনেই সেদিন কার মত শুয়ে পরলাম ।

পরদিন ও আমাকে ফোন দিয়ে বলল, জান । তুমি আমার বাসায় আসবে ? দুপুরে ?
আমি বললাম, কেন ? বাসায় কেউ থাকবে না !
ও বলল, না । আম্মু আমার ছোট বোনকে নিয়ে খালামনির বাসায় যাবে ।
আমি বললাম , ঠিক আছে । আমি দুপুর চলে আসব ।

সেদিন দুপুরে খাওয়া দাওয়ার পর আমি ওদের বাসায় গেলাম ।
কলিং বেল চাপতেই ও দৌড়ে এসে দরজা খুলে আমাকে ওদের বসার ঘরে নিয়ে গেল ।
আমাকে সোফায় বসিয়েই চুমুতে চুমুতে ভরিয়ে দিল ।
আমারও ভালো লাগছিল ।
আমি বললাম, এই যে পাগ লু । জানালা বন্ধ কর । পাশের বাসায় কেউ দেখতে পাবে ।
ও তাড়াতাড়ি জানালার পর্দা টেনে দিল ।
বলল, চল । আমার ঘরে চল ।
আমি ওর সাথে ওর ঘরে গেলাম ।
ছোটো ঘর । কিন্তু সুন্দর করে গোছান । দেয়ালে নীল রঙ । জানালা আর দরজার পরদাগুলোও নীল । বিছানার চাদরটাও নীল ।
আমি বললাম, বাহ । আমার সোনাটার অনেক পছন্দ আছে দেখছি ?
ও কিছু বলে না । আমায় জড়িয়ে ধরে আমাকে বিছানায় নিয়ে ফেলে দেয় ।
আমার বুকের উপর উঠে আমার ঠোঁটে ঠোঁট চেপে ধরে ।
আমি ওর ঠোঁট চুষতে লাগলাম ।
অনেক জোরে জোরে ।
ও বলে, এই আস্তে । ঠোঁট ফুলে যাবে ।
আমি হেসে বলি, যাক না !
ও এবার আমার প্যান্ট খুলে ফেলে ।
আমি বলি, দেখ আমার ছোট বাবুটা তোমার আদর পাওয়ার জন্য কি করছে ।
ও আমার পেনিস ওর নরম হাতে ধরে চুমু খায় ।
আমার সারা শরীর শিউরে উঠে আবেশে । এত সুখ ।
ও আমার বুক, নাভি সব জায়গায় আদর দেয় ।
আমি বলি, সোনামণি । আমি আর পারছি না । আমাকে করতে দাও ।
ও বলে, জান । আমি কখনও এনাল করিনি । ভয় লাগছে । পারব কিনা জানি না ।
আমি বললাম, সোনা । আমি আস্তে আস্তে করব । ব্যথা পাবা না ।
ও রাজি হয় ।
আমি ওকে উপুড় করে শুইয়ে দিই ।
ওর পিছন দিকে মুখ থেকে একটু থুথু এনে দিই ।
এবার আমার পুরুষাঙ্গ সেট করে ওর মাঝে প্রবেশ করতে যাই ।
ও ব্যথায় কুঁকড়ে যায় ।
আমি বলি, জান । ইজি হও । পারবে ।
ও কিছু বলে না । একটু পর আমার পেনিস কিছুটা ঢুকল ।
আমি হালকা করে কোমর দুলানো শুরু করলাম ।
কিন্তু ও আমার পেটের নিচে হাত দিয়ে বলে , উফ ! আমি পারব না জান । আমার ভেতরটা জ্বলে যাচ্ছে । প্লিজ তুমি বের কর ।
আমি ওকে ভালবাসতাম । তাই ওর কষ্ট দেখে আমারও খারাপ লাগল ।
আমি আমার পেনিস বের করে ফেললাম । ওর দু পায়ের ফাঁকে দিয়ে আদর করতে লাগলাম ।
এভাবে কিছুক্ষন করার পর আমার বীর্য বেরিয়ে যায় ।
ও আর আমি জড়াজড়ি করে শুয়ে থাকি । অনেকক্ষন ।
আমার বুকের মাঝে ওকে নিয়ে শুয়ে থাকি ।
ও আমার বুকের গন্ধ নেয় ।
সেদিন ওর বাসা থেকে চলে আসি ।
এরপর থেকে কিছুদিন পর পরই দুজন দুজনকে প্রাণ ভরে আদর করতাম ।
কিন্তু ও আমাকে আর কখনোই এনাল করতে দিত না ।

২ মাস পরের কথা ।
ওর মাঝে আমি কেমন একটা পরিবর্তন টের পাই ।
আগের মত কথা বলে না । আদর করে না ।
ফোনের পরিমাণটাও কমে গেছে ।
আমি তাই একদিন সরাসরি ওকে জিজ্ঞেস করি, তোমার কি হয়েছে বলতো ? আমাকে নিয়ে কোন সমস্যা ? আমাকে খুলে বল প্লিজ ! লুকিও না ।
ও আমাকে বলে, আরে নাহ ! আমার কিছুই হয় নি । এমনি ।
কিন্তু দিন দিন আমাদের সম্পর্কটা খারাপ থেকে খারাপের দিকে যেতে লাগল ।
ও আমার সাথে রাফ ব্যবহার শুরু করল ।
আমি ভেবে পাই না দোষটা কোথায় !
আমাদের সম্পর্ক এতটাই খারাপ হয়ে গেল ও আমার ফোন ধরত না । এমনকি আমাকে দেখলেও এড়িয়ে যেত ।
একদিন সরাসরি ওর সামনে দাঁড়াই । ওকে বলি, আমার চোখের দিকে তাকাও ? কেন তুমি আমাকে কষ্ট দিচ্ছ ? বল জান ।
ও আমার দিকে তাকায় না । মাটির দিকে তাকিয়ে থাকে । বলে, আমি আর তোমার সাথে সম্পর্ক করতে চাই না ।
আমি ওর হাত ধরে বলি, এই তুমি এসব কি বলছ ? তোমার মাথা ঠিক আছে তো ?
ও ঠাণ্ডা মাথায় বলে, আমি ঠিক আছি । আমি সব ভেবে চিন্তেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি ।
আমি বলি, আমার কি দোষ ?
ও বলে, তোমার আমার কারও কোন দোষ নেই । আমি এখন আর চাচ্ছি না ।
আমি আর কিছু বললাম না ।
বোকার মত কিছু না বলে চলে আসলাম ।
আমার ভেতরটা জ্বলে যাচ্ছিল ।
আমিতো ওকে শুধু সেক্স এর জন্য চাই নি । আমিতো ওকে ভালবাসতাম ।
তবে কেন এমন করল ?
আমার কি দোষ ছিল ? জানি না ।
কেন জানি এখনও ওকে ভালবাসি । অনেক ভালবাসি ।
এখনও ওর জন্য অপেক্ষা করি ।
আমার ধারনা একদিন সে তার ভুল বুঝতে পারবে ।
সেদিন আবার দুজন একসাথে সূর্যাস্ত দেখব ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s